Uddokta.com

উদ্যোগের আদ্যোপান্ত

উদ্যোক্তাদের সপ্তাহে কত ঘন্টা কাজ করা উচিত ও কেন?

More Share, More Care!

আমাদের অনেকের মনেই প্রশ্ন থাকে একজন সফল উদ্যোক্তা কত ঘন্টা কাজ করেন? বা আমরা যারা উদ্যোক্তা হতে চাই তাদের মনেও প্রশ্ন থাকে যে, একজন উদ্যোক্তার কত ঘন্টা কাজ করা উচিত? আবার ইতিমধ্যেই যারা একটি ব্যবসা শুরু করেছেন এবং ভাবছেন কত ঘন্টা আপনার ঘড়িতে থাকা উচিত?

তাহলে আসুন এ ব্যাপারে একটি খোলাশা করে আলোচনা করা যাক।

একজন উদ্যোক্তা কত ঘন্টা কাজ করবেন

আমি প্রথমেই সফল উদ্যোক্তাদের কিছু উদাহরণ দিয়ে শুরু করি। প্যাট্রিয়টের প্রতিষ্ঠাতা এবং সিইও মাইক ক্যাপেল তার প্রথম ব্যবসা শুরু করার সময় নিয়মিত সপ্তাহে ৭০ থেকে ৮০ ঘন্টা কাজ করতেন। তাছাড়া কোটিপতি গ্রান্ট কার্ডোন বলেছেন যে, তিনি প্রতি সপ্তাহে ৯৫ ঘন্টা কাজ করেন। তাহলে আমরা দেখতে পাচ্ছি মোটা যারা তাদের ব্যবসায় সফল তারা দৈনিক গড়ে ১১ থেকে ১৪ ঘন্টা কাজ করে থাকেন।

সুতরাং আপনি যদি নতুন ব্যবসা শুরু করেন তবে শুরুর দিকে আপনাকে একটু বেশি সময় দিতে হবে। তাই সপ্তাহে আপনাকে কমপক্ষে ৮০ থেকে ৮৫ ঘন্টা কাজ করতে হবে। কারন আপনি আপনার ব্যবসাতে যতটা বেশি সময় দিবেন ব্যবসাও ঠিক ততটাই আগাবে।

সুতরাং প্রতিদিন আপনি আপনার বিজনেসে ১১ থেকে ১২ ঘন্টা টাইম দিবেন। এরপর যখন ব্যবসাটা একটু বড় হবে তখন চাইলে কিছুটা সময় কমিয়ে নিতে পারবেন।

কেন এত ঘন্টা কাজ করবেন ?

একটি ব্যবসার মালিকরা সাধারণত বেশিরভাগ কর্মচারীর চেয়ে বেশি সময় নিয়ে কাজ করেন। কারণ তাদের ব্যবসায় একাধিক ভূমিকা থাকে। যেই কাজগুলো একজন কর্মচারী করতে পারবে না। যখন আপনি একটি ব্যবসার মালিক হবেন,তখন আপনাকে এই ধরনের কাজগুলি পরিচালনা করতে হতে পারে:

১) ব্যবসায়িক সকল প্রকার লক্ষ্য নির্ধারণ করা

২) কৌশলগত কিছু বিষয় নিয়ে পরিকল্পনা করা।

৩) ব্যবসায়িক পরিকল্পনা তৈরি করা।

৪) গ্রাহকদের পণ্য বিপণন করা।

৫) ইমেল, ফোন কল এবং চ্যাটের উত্তর দেওয়া

৭)চিন্তাভাবনা করা।

এবং একজন উদ্যোক্তা হিসেবে প্রথম দিকে এ কাজগুলো নিজেকেই সম্পাদন করতে হয়। এর কারন একটি ব্যবসা শুরু করলে উপরিউক্ত কাজ গুলো পরিচালনা করার জন্য কর্মচারী নিয়োগের প্রয়োজন হবে। কিন্তু নতুন ব্যবসায় সেটি না করে নিজে এই কাজগুলো একটু বেশি সময় নিয়ে করলে অনেক ভালো হবে। আর তাই সব মিলিয়ে প্রথম অবস্থায় একজন উদ্যোক্তার দৈনিক এগারো থেকে বারো ঘন্টা কাজ করা প্রয়োজন।

অধিক ঘন্টা কাজ করার খারাপ দিকগুলো কী?

এখানে অধিক সময় আপনি আপনার ব্যবসায় ঠিকই দিবেন। তবে এই কাজের ফাঁকে আপনি যদি সামান্য কিছু সময় বিশ্রাম না নেন, তবে আপনার অবস্থা খুবই খারাপ হবে। কআরন অত্যধিক কাজ করার ফলে আপনি এই সমস্যাগুলোর সম্মুখীন হতে পারেন:

১) অতিরিক্ত মানসিক চাপ এবং উদ্বেগ
২) নিদ্রাহীনতায় ভোগা বা ঘুমের অভাব
৩) অস্বাস্থ্যকর অভ্যাস গড়ে উঠা যেমন, অতিরিক্ত সময় ধরে বসে থাকা।
৪) ক্লান্তি অনুভব করা
৫) অন্য সকল কাজে মনোযোগ দিতে অসুবিধা হওয়া।

তাছাড়া অতিরিক্ত সময় কাজের ফলে খাবারের রুচিও কমে আসে। এবং আপনি যদি বিশ্রাম না নিয়ে একটানা কাজ করেই যান তবে আপনার হৃদরোগেরও ঝুঁকি রয়েছে। আপনি হার্ট এর্টাকও করতে পারেন।
তাই চেষ্টা করবেন প্রতিদিন এগারো বারো ঘন্টা কাজের ফাঁকেও একটু বিশ্রাম নেওয়া। একটু খানি মন ভালো করতে কিছু গল্পের বই পড়া বা ম্যাগাজিনে চোখ বুলানো।

কম ঘন্টা কাজ করার উপায়—

হ্যাঁ, এটা ঠিক যে হয়ত আপনার ব্যবসার সফল করতে হলে আপনাকে দীর্ঘ সময় কাজ করতে হবে। কিন্তু, আপনি চাইলে এই উপায়গুলো অবলম্বন করে কম সময় কাজে লাগিয়েও ব্যবসার গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলো করিয়ে নিতে পারবেন।


১) ম্যানুয়াল কাজগুলি স্বয়ংক্রিয় করার মাধ্যমে-

আপনার ব্যবসার হিসেব নিকেশ রাখা, কর্মচারীদের বেতনের হিসাব, মালামালের হিসাব, পণ্য আমদানি ও বিক্রি ইত্যাদি যাবতীয় হিসাব গুলোর জন্য আপনি ব্যবসায়িক কিছু সফটওয়্যার এর সাহায্য নিতে পারেন। এতে আপনার সময় ও শ্রম দুটোই বাঁচবে। একটি ব্যবসায় পণ্য বিক্রয় এর থেকে এই কাজগুলো করা অত্যন্ত ঝামেলার মনে হয়। তাই এগুলো সফটওয়্যার এর মাধ্যমে করিয়ে নিন।

২) কর্মচারী নিয়োগ করুন-

আপনার কাছে যদি ব্যবসার খরচ বাদে একজন কর্মচারীকে বেতন দেবার মতো কিছু টাকা থাকে তাহলে চাইলে আপনি কর্মচারী নিয়োগ করতে পারেন। এবং তাকে দিয়ে ব্যবসার গুরুত্বপূর্ণ কাজ গুলো না করালেও ছোট ছোট প্রয়োজনীয় কাজগুলো করান। এতে করে আপনার সময় ও শ্রম দুটোই বাঁচবে।

শেষ কথা
ব্যবসার ক্ষেত্রে একটি কথা অবশ্যই মাথায় রাখার চেষ্টা করবেন পরিশ্রম যত বেশি করবেন, সফলতাও তত কাছে পাবেন। আর আপনি এই বিষয়টা মাথায় রাখবেন আপনার জীবন থেকে প্রতিদিনের অর্ধেক সময়ই ওই ব্যবসার পিছনে ব্যয় হচ্ছে। তাই সেই সময়ের মূল্যটাকে সফলতা হিসেবে পূরণ করতে হবে। তাই চেষ্টা করবেন সময়ের দেওয়ার সাথে সাথে যুগোপযোগী কৌশল গুলো ব্যবসায় ব্যবহার করতে। এতেই আপনি দ্রুত সফল হবেন।


More Share, More Care!

Leave a Reply Cancel reply